About Us

তাঁত শুধুমাত্র কোন কাপড়ের ধরণ নয়এটি একটি শিল্প।

প্রাচীন যুগ থেকে এই বাংলার জনপদের আনাচে কানাচে গড়ে উঠেছিল একদল শিল্পীর মেলা। তাঁতির মেলা। তাদের দক্ষ হাতের সুনিপুণ কৌশলে হৃদয়ের গভীরে লালন করা এক একটি স্বপ্নের বুনন প্রকাশ পেয়েছে কাপড়ে। শিল্পীর বলা এবং না বলা গল্পের  বহিঃপ্রকাশ তাঁত।

আধুনিকতার যান্ত্রিক জীবনেইট-পাথরের মাঝে তিন পুরুষের ঐতিহ্য ধরে রাখতে এবং সেই সাথে নতুন নতুন স্বপ্ন বুননের লক্ষ্যে অবিচল ‘তাঁতি’। বিদেশী ব্রান্ডগুলোর সাথে সমানতালে চলে লোকালয়ের ছোঁয়া আন্তর্জাতিক মাধ্যমে চিত্রায়নের দেশী ব্র্যান্ড ‘তাঁতি’। যারা সর্বদা ঐতিহ্যবাহী বাংলার তাঁতশিল্পের নিত্যনতুন ও আধুনিক রুপে সাজাবার জন্য নিরলস ভাবে কাজ করে আসছে। ঐতিহ্যগত ও পারিবারিকভাবে দীর্ঘদিনের এই ব্যবসাকে প্রযুক্তির মাধ্যমে সকলের দোরগোড়ায় পৌঁছে দেয়াটাই ‘তাঁতি’র মূল স্বপ্ন। একদিকে দেশীয় প্রযুক্তিতে প্রশিক্ষিত তাঁতিদের নিপুণ হাতে বোনা দেশী তাঁতের শাড়ীঅন্যদিকে ক্রেতাদের কষ্টার্জিত উপার্জনে লালিত স্বপ্ন বাস্তবায়নের বিশ্বস্ত ঠিকানা ‘তাঁতি’।

১৯৬০ সালে তৎকালীন বৃহত্তর পাবনা (বর্তমান সিরাজগঞ্জ) জেলার সোহাগপুর থানায় খিদ্র মাটিয়া গ্রামে একদল তাঁতির স্বপ্ন বুননের যাত্রা শুরু হয়। কালের খেয়ায় চড়ে যাত্রীরা বুননকেই জীবিকার রঙে সাজিয়ে নিয়েছিলজীবন ধারণের লক্ষ্যে। তখন শাড়ি ছিল নির্দিষ্ট কিছু রঙের। মোটাদাগে শুধু সাদা শাড়িটায় চোখে ভাসে যেন। আশির দশকে যুগের সাথে তাল মিলিয়ে তাঁতির মনের ও বুননের রঙে আসে পরিবর্তন। বর্তমানের এই আধুনিক প্রযুক্তির যুগে প্রায় বিলুপ্ত হতে চলেছে তাদের সুনিপুণ হাতে বোনা শড়ির কাজ। সেই সাথে হারিয়ে যেতে বসেছে সেই সকল তাঁতি নামক শিল্পীদের অস্তিত্ব। নতুন প্রজন্ম বঞ্চিত হচ্ছে আমাদের কালজয়ী তাঁত শিল্পীদের সুনিপুণ হাতে গড়া শৈল্পিক নকশা থেকে

তাঁত শিল্প পিপাসু ক্রেতার সময় এবং সুবিধার বিষয়টি বিবেচনায় রেখে, ‘তাঁতি’ দেশের গণ্ডি পেরিয়ে বিশ্বের যে কোন প্রান্তে স্বল্পতম সময়ে ক্রেতার হাতে দেশীয় তাঁতে বোনা শাড়ি অত্যন্ত বিশ্বস্ততার সাথে পৌঁছে দিতে চায়।

তাঁতি’র উদ্দেশ্য একটিইসকল তাঁতের শাড়ি পিপাসু নারীর গল্প ফুটে উঠুক সুনিপুণ তাঁতে বোনা শাড়ির মাঝে। তাঁতিই হোক একমাত্র বিশ্বস্ত প্রতিষ্ঠান।

সেই লক্ষ্যে ‘তাঁতি’ বাংলাদেশের আনাচে-কানাচে ছড়িয়ে থাকা দক্ষ তাঁতিদের খুঁজে বের করে তাদের সুনিপুণ হাতে গড়া সকল প্রকার তাঁতের শাড়ি সংগ্রহ এবং রুচিশীল ক্রেতাদের চাহিদা মিটিয়ে ‘তাঁতি’-কে বাংলাদেশ তথা আন্তর্জাতিক পরিমন্ডলে একটি সফল ও অন্যতম ব্র্যান্ড হিসেবে তুলে ধরা।

‘Taat’ (Loom) is not just a type of fabric, it is an art

From ancient times a band of artists was formed in different parts of Bengal. A band called ‘TaTi’ (Weavers). With their habile technique of skillful hands, they weaved the dreams that were nurtured in their heart. Their weaving is the outward manifestation of both told and untold stories.

In the modern mechanical life of bricks and stones, ‘TaTi’ aims to retain the tradition of their ancestors as well as to weave new dreams. The local brand 'TaTi' is on par with the foreign brands who always try to keep their local touches in the International arena. . TaTi has always been working tirelessly to decorate the traditional Bengali weaving industry in a new and modern way. The main dream of 'TaTi' is to bring this traditional and family-oriented business to the doorsteps of all through technology. ‘TaTi’ is a trustworthy harborage for sari woven by the skilled weavers, trained in homebred technology and also for the buyers cherished dreams which they will buy with their hard-won money.

In 1960, a group of ‘TaTi’ started weaving dreams in Khidr Matia village under Sohagpur Thana in the then Greater Pabna (now Sirajganj) district. They took weaving as their livelihood, with the aim of sustaining life. At that time sari had certain colours. Then White Sari was the only option that comes to our mind. In the Eighties, the colour of the TaTi’s mind and weaving changed with the times. In today’s age of modern technology, their hand-woven work is almost extinct. At the same time, the existence of all those weavers is lost. The new generation is losing the artistic designs of our timeless Tatis (Weavers).

Considering the time and convenience of the Taat thirsty buyer, ‘TaTi’ wants to cross the borders of the country and deliver the local weaved sari in the hands of the buyer to any part of the world in the shortest possible time with utmost fidelity.

The purpose of ‘TaTi’ is to reveal the story of all the sari-loving ladies who should come to light with skillful weaving. Let ‘TaTi’ be the only trustworthy station.

To this end, ‘TaTi’ finds skilled weavers scattered all over Bangladesh, collects all kinds of handloom taat sari, and caters to the needs of buyers, making ‘TaTi’ a successful and one of the leading brands in Bangladesh and internationally.